Hello Testing Bangla Kobita

Advertisement

1st Year | 10th Issue

রবিবার, ২৮শে চৈত্র ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | Sunday, 11th April 2021

অ নু বা দ

অ মি তা ভ   মৈ ত্র

কার্ল স্যান্ডবার্গ-এর কবিতা

“Poetry is an echo, asking a shadow to dance” বলেছিলেন স্যান্ডবার্গ (১৮৭৮-১৯৬৯)। জন্ম ইলিনয়ে। বাবা-মা অগাস্ট জনসন আর ক্লারা জনসন। সুইডেন থেকে আমেরিকায় বসবাস করতে এসে বেশ কিছু অগাস্ট জনসন নামের মানুষ দেখে জনসন থেকে স্যান্ডবার্গ করে নিলেন নিজেদের নাম। গরিব পরিবার। রুটিরুজির জন্য তেরো বছর বয়সে স্কুল জীবন ছেড়ে কখনো দুধের গাড়ি চালানো কখনো হোটেলের কুলির কাজ, আবার কখনো ইটের ভাটায় কাজ করার পর Spanish- America War-এর সময় যোগ দিলেন সেনাবাহিনীতে।

তাঁর প্রথম কাব্যগ্রন্থ “Reckless Ecstasy” বের হয় ১৯০৪ সালে। এরপর শিকাগোতে এসে “Daily News” পত্রিকার সম্পাদকীয় দপ্তরে যোগ দিলেন। প্রতিবছর ব্যাঞ্জো আর গিটার নিয়ে সারা দেশে লোকসংগীত গেয়ে আর কবিতা পড়ে বেড়াতেন কার্ল স্যান্ডবার্গ।

Carl-Sandburg

বাতাসের খেলনা বিষয়ে চারটি প্রস্তাবনা

 

আগামীকাল নামের মেয়েটি

দাঁতের ফাঁকে চুলের কাঁটা নিয়ে

ধীরে সুস্থে বসে

নিজের ইচ্ছে মতো চুল বাঁধছে

তারপর শেষ গুছিটুকু বিনুনি বেঁধে খোঁপা করে

চুলের কাঁটা বসিয়ে যেখানে দরকার

তারপর মুখ ফিরিয়ে নিজের মনে বিড়বিড় করছে

ঠিক আছে, কী আসে যায়?

আমার গতকাল নামের দিদিমাটি মারা গেছে।

কী আসে যায়? যারা মৃত শান্তিতে কবরে থাকুক তারা।

 

 

সেডার কাঠের দরজায়

সোনার নকশায় কিছু লেখা

আর মেয়েরাও খাঁটি সোনার।

সোনার নকশা পড়ছিল তারা মন্ত্রের মতো—

আমরাই শ্রেষ্ঠ শহর

মহত্তম জাতি আমরাই

আমাদের মতো আর কিছু থাকতে পারে না।

 

এখন ভাঙা কবজার দরজার পাল্লাগুলো বেকেচুরে ঝুলছে

আর শোঁ শোঁ করে ঘুরে বেড়াচ্ছে ঘন বৃষ্টির ঝাপটা

যেখান থেকে চলে গেছে সোনার মেয়েরা।

দরজার সোনার নকশায় তখনো লেখা—

আমরাই শেষ্ঠ শহর

মহত্তম জাতি আমরাই

আমাদের মতো আর কিছু থাকতে পারে না।

 

 

আগেও এমন হয়েছে

শক্তিমান মানুষেরা বড়ো বড়ো শহর বানাল

একত্রিত করল একটা জাতিকে

আর গায়িকা এবং মহিলাদের পয়সাকড়ি দিল যাতে তারা গায়—

আমরাই শ্রেষ্ঠ শহর

মহত্তম জাতি আমরাই

আমাদের মতো আর কিছু থাকতে পারে না।

যখন গাওয়া হলো

শক্তিমান মানুষেরা শুনল সেই গান

আর ভালমতো পয়সাকড়ি দিল গাইবার জন্য।

শ্রোতাদের মধ্যে ছিল ইঁদুর আর টিকটিকিরাও

 

সেই গান শুনতে এখন শুধু আছে

ইদুর, টিকটিকি আর কালো কাক যারা কা কা করছে

শুকনো কাঠগি আর কাদা দিয়ে বাসা বাঁধছে

শক্ত হয়ে যাওয়া শব্দগুলোর ওপর

যেখানে সেডার কাঠের দরজায়

সোনার নকশায় লেখা ছিল

আর সোনার মেয়েরা গেয়েছিল আদরের গান—

আমরাই শ্রেষ্ঠ শহর

মহত্তম জাতি আমরাই

আমাদের মতো আর কিছু থাকতে পারে না।

 

গান বলতে শুধু কাকেদের কা কা চিৎকার

ঘন বৃষ্টির ঝাপটা গুমরে উঠছে বাতাসে, ভাঙা দরজায়

যেখানে শ্রোতা শুধু ইঁদুর, টিকটিকি।

 

 

চৌকাঠে ইঁদুরের পায়ের হিজিবিজি দাগ

সেই দাগের হিয়েরোগ্লিফ এখন বকবক করছে

ইঁদুরদের বংশ পরিচয় নিয়ে

আর তাদের বাপ ঠাকুরদার শুদ্ধ রক্ত আর মহান জীবন নিয়ে।

আর সরে যাচ্ছে বাতাস

চৌকাঠের জমাট ধুলো দ্রে যাচ্ছে নিঃশব্দে

এমনকি ইঁদুরদের পায়ের দাগও একেবারে কিছুই বলছে না

আমাদের শ্রেষ্ঠ শহর আমাদের মহত্তম জাতির বিষয়ে

যেখানে শক্তিমান মানুষেরা শুনতো মেয়েদের গান—

আমাদের মতো আ কিছু থাকতে পারে না।

আরও পড়ুন...