Hello Testing Bangla Kobita

3rd Year | 6th Issue

রবিবার, ২৬শে কার্তিক, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | Sunday, 13th Nov 2022

প্রতি মাসে দ্বিতীয় রবিবার

প্রচ্ছদ কাহিনী, ধারাবাহিক গদ্য, ছোটোগল্প, গুচ্ছ কবিতা, কবিতা, প্রবন্ধ, উপন্যাস, স্বাস্থ্য, ফ্যাশান ও আরও অনেক কিছু...

গু চ্ছ ক বি তা

অ র্ঘ্য ক ম ল  পা ত্র

কলেজে বসে…

স্বীকারোক্তি

 

মুগ্ধতা পেয়েছি বলে, মগ্ন হতে পারিনি কখনও

এসব বোঝো না তুমি। বুঝতে হবে না কোনোদিন

 

বরং সাজাও গ্রাফ, সাবধানে স্লোপের বিস্তার…

নইলে তো পন্ড হবে শ্রম, অচিরে উঠবে ভুল

 

আমার ভুলের পাশে, দেখি, ঝুলে আছো আজও;

কখনও প্রশ্রয় দাও, কখনও সরাও নিজহাতে

                মুখের বাঁ-পাশ থেকে দু-গাছি ও চুল…

 

 

ছাপ

 

বরং, ব্লেডের দাগ ফুটে থাকে কিছুকাল ধরে…

বলেছি, লিখেছি কত কথা স্পষ্ট গোপন অক্ষরে—

 

একবার অন্তত আসুক বন্ধুত্ব ভাবনা ছেড়ে

বসুক নাহয় ম্লান; প্রকাশ্যে লাগে না সব কথা

 

তবুও নিছকই প্রেম

                    এভাবে কি কখনও গড়ে না?

 

ব্লেড, রক্তদাগ, ক্ষয়—ফুটিয়ে তোলাই তবে সত্য?

বান্ধবী তোমার যদি সে, কখনও কবিতা পড়ে না?

pujo_16_sketch2

খেলাপ

 

হেরে যেতে, হেরে যেতে যেতে

আমি তো খুঁজেছি রোজ, তুমিও কি না পেয়ে কাতর?

 

বিষণ্ণতার গায়ে লাগা এটুকু জমাট দেখি

বাকিসব মৃদুমন্দ

হাসি, গান, হুল্লোড় ও আঘাত…

 

দূরত্ব তৈরির মধ্য দিয়ে, আর যা যা উঠে এল

সেসব কি অনুরাগ? নাকি প্রতিবাদ?

 

 

অতঃপর

 

তোমাকে পেয়েছি ভেবে

উচাটন বৃষ্টিদিনে, ক্রমশ দিঘির জলে নেমে

ঝাপসা দেখেছি সব

উপরে যা স্পষ্ট ছিল খুব…

 

তোমাকে পেয়েছি আদৌ?

নাকি এ সমস্তই নিশ্চুপ?

 

আদতে এসেছে দ্বিধা; দ্বিধার পিছনে আসে ভয়…

 

কবিতা? নাকি ওষুধ?

কার কাছে এ-বিপদে সাহায্য নিতে হয়?

pujo_16_sketch2

দোষ

 

তোমার জীবন থেকে তবে

আমাকে কি সরে যেতে হবে?

শেষে বিসর্জনে,  তা তো  যাওয়াই যায়…

 

হাবুডুবু খেতে খেতে রোজ

মাটি তার কাঠামো হারায়…

 

তোমারও তেমনি ভ্রম

এ-কাঠামো ফাঁকা দেখে, এল নাকি দয়া?

ওহে! দয়াপরবশ মেয়ে, মন দিয়ে শোনো—

 

এতদিন জলে ডুবে  কীভাবে ছিলাম ভয়ে

তোমাকে কি বলেছি কক্ষণও?

 

 

বিশ্বাস

 

তোমাকে চেয়েছে আরও যারা

তাদেরও চেয়েছি আমি

 

নইলে এই প্রতিযোগিতাকামী দিনে

হারাব কাকেই আর তুলব কলার?

 

বিস্মিত চশমা মুছে দেখো মন দিয়ে—

কেবল তোমাকে ছাড়া

কারোর কাছেই হারিনি আমি আর…

pujo_16_sketch2

মুখোমুখি

 

ইশারা কিছুটা আরও জমাট করাই যেত বটে

করিনি নিখুঁত তবু। বুঝেছি, মেধাবী দৃষ্টি আছে

 

তারই পাছে পাছে ঘুরে

থেমেছি যেখানে ভয় না-পাওয়া ঘিরে…

যাইনি তবুও ফিরে— কিছুটা সময় দিও

 

শান্তিতেই বসো তুমি আর

চোখে  যদি পড়ে রোদ

আমাকে তোমার শুধু সামনে ডেকে নিও…

 

 

না-হওয়া

 

যেকোনো সম্ভাবনাহেতু আমাদের দেখা হল;

হল-ই যখন, বাড়াবে হাত? সমুদ্রের দিকে?

 

সমুদ্রে আমি হাঁটুজল। সামান্যই তো

শিখেছি খেতে; বাড়েনি তাই খিদে…

 

অবিশ্বাসে ভাবছ ভীরু?

ওরে হারামজাদি

তোর জন্যই কাব্য লিখি;

                নাছোড় কোনো জিদে

pujo_16_sketch2

আরও পড়ুন...

প্রতি মাসে দ্বিতীয় রবিবার