Hello Testing

4th Year | 2nd Issue

৩১শে বৈশাখ, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ | 15th May, 2023

প্রচ্ছদ কাহিনী, ধারাবাহিক গদ্য, ছোটোগল্প, গুচ্ছ কবিতা, কবিতা, প্রবন্ধ, উপন্যাস, স্বাস্থ্য, ফ্যাশান ও আরও অনেক কিছু...

রূ প  ক থা

অ নু ক্তা   ঘো ষা ল

মডেল ও কবি

anukta

গরমের ফ্যাশানে শাড়ি

গরম বাড়ছে। তাই এই সময়ে পোশাক বেছে নেওয়ার সময় খেয়াল রাখতে হবে  যেন পোশাকের ফ্যাব্রিক হয় আরামদায়ক। গরম কালে  যে কোন অনুষ্ঠানে শাড়ি কিন্তু হতে পারে আদর্শ পোশাক। শুধু খেয়াল রাখতে হবে শাড়ির ফ্যাব্রিক আর রঙের দিকে।আগামী কয়েকদিনে যেহেতু তাপমাত্রা বাড়বে বলেই জানা যাচ্ছে তাই  এই সময়ে আরামদায়ক-ব্রিজি শাড়ি বেছে নেওয়ার সময় এসেছে। তাই এই গরমে আদর্শ পোশাক হিসেবে হালকা রঙের ফুরফুরে আরামদায়ক শাড়ির কথাই বলেছেন লেবেল সুকন্যার কর্ণধার সুকন্যা গুহ।লিনেন, কটন,শিফন, মলমলের মতো ফ্যাব্রিকের শাড়ির কথা বলেছেন তিনি যা শুধু আরামদায়ক তাই নয় সব বয়সের নারীরা এই ধরনের শাড়ি ক্যারি করতে পারেন অনায়াসে। এই গরমে শাড়িকেই পছন্দের আউটফিট হিসেবে বেছে নিতে বলেছেন তিনি। নীল, গোলাপির মতো নানা রঙের প্যাস্টেল শেডের কথা যেমন তিনি বলেছেন তেমনি বলেছেন সুদিং শিফন শাড়ির কথা। আর্দি টোনের বিভিন্ন শাড়িও এখন ট্রেন্ডিং। তাছাড়া পরেও আরাম হয়। আই সুদিং এই রঙ দেখেও আরাম লাগে। এছাড়া রয়েছে ফ্লোরাল প্রিন্ট।আর এই গরমকালই হল ফ্লোরাল প্রিন্ট পরার মতো আদর্শ সময়।তাই এই গরমে ফ্লোরাল প্রিন্টের শিফন বা ক্রেপ শাড়িতে সেজে অনায়াসেই তাক লাগিয়ে দেওয়া যায় সকলকে।

সুকন্যা আরও বলেছেন যে হলুদের মতো উজ্জ্বল রঙ গরমে স্টাইল করার জন্যই যেন তৈরি হয়েছে।তাই হলুদ রঙ পরে নির্দ্বিধায় স্টাইলিং করতে পারেন আপনিও। দেখতেও ভালো লাগে। কিন্তু কীভাবে স্টাইলিং করবেন? সেই নিয়ে কি নানারকম প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন তিনি। এই গরমে ক্রেপ, শিফন, অর্গ্যাঞ্জার সাথে সবচেয়ে  মানানসই হাল্কা মেকাপ। ন্যুড শেডের লিপস্টিকের সাথে ফ্লোরাল প্রিন্টের শাড়ি যেন ক্রিয়েট করে একটা অন্যরকম  রিফ্রেশিং লুক ।আপনি কোনও ব্রাঞ্চ ডেটে যাচ্ছেন বা সকালে কোনও অনুষ্ঠানে যোগ দিচ্ছেন,এই ফ্লোরাল প্রিন্ট শাড়ি কিন্তু বেস্ট অপশন।  আর নাহলে ফুল স্লিভ ব্লাউজ দিয়ে আর্দি টোনের শাড়িও পরতে পারেন। এই ধরনের শাড়ি এখন খুবই ট্রেন্ডিং। আর পরেও খুবই আরাম লাগে। এই ধরনের শাড়ি পরলে মেকআপ যেন খুব ভারী না হয় সেইদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

গরমে হালকা মেকআপের উপরেই সারতে হবে আপনার সাজ।ওয়ার্ড্রোবে যতই পোশাক থাক না কেন শাড়ির কিন্তু সব সময়ই আলাদা কদর রয়েছে। ভারতীয় সব মেয়ের আলমারিতেই আলাদা করে শাড়ির জন্য অন্তত দুটো তাক বরাদ্দ থাকে। থরে থরে সাজানো শাড়ি দেখতেও কিন্তু বেশ লাগে। সেখানে হ্যান্ডলুম, তসর, বিভিন্ন রকমের সিল্ক, বেগমপুরি, ফুলিয়ার তাঁত, বালুচরী, জামদানি, মলমল, কাঞ্জিভরম, পৈঠানি, কাঞ্চিপুরম নানা শাড়ি থাকে। এখন নানা রকম বেনারসি শাড়িও পাওয়া যায়। এছাড়া থাকে  নানা রকমের রেডি টু  ওয়্যার শাড়ি। তবে একথা অস্বীকার করার কোনও উপায় নেই যে, যে কোনও অনুষ্ঠানে মেয়েদের শাড়িতেই কিন্তু সবচেয়ে ভাল মানায়। এমনও  অনেকেই আছেন যাঁরা শাড়ি পরতে ভীষণ ভালবাসেন এবং অফিসও আসেন শাড়ি পড়ে। শাড়ির মধ্যে যে স্মার্টনেস থাকে তা কিন্তু অন্য কোনও পোশাকে থাকে না। তবে গরমের দিনে কোনও  অনুষ্ঠান বা পার্টিতে সিল্ক, গাদোয়াল, তসর এসব পরে যেতে একটু অসুবিধে হয়। গরমের কারণেই এই সব শাড়িতে ততটাও স্বাচ্ছন্দ্য পাওয়া যায় না। আর তাই এইসময় বেছে নিতে হবে যে কোনও সুতির শাড়ি। বাংলার নিজস্ব প্রচুর শাড়ি রয়েছে। আর সেই সব শাড়ি কিন্তু রাখা যেতে পারে পছন্দের তালিকায়।

মলমলের শাড়ি পরে যেমন আরাম লাগে তেমনই দেখতেও ভাল লাগে। মলমলের শাড়ি পরলে আলাদা করে কোনও মেকআপের প্রয়োজন হয় না। ছোট্ট টিপ আর কাজলেই কাজ চলে যায়। মলমলের শাড়ির আর্দ্রতা এবং ঘাম শোষণ করার একটি স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য রয়েছে। মলমল শাড়ির আর একটি বৈশিষ্ট্য হল, এটি ধোয়ার পর আরও নরম হয়ে যায়.lতেমনি বেগমপুরি শাড়ি যেমন নরম তেমন কিন্তু পরেও আরাম। আর  হ্যান্ডলুমের ব্লাউজ দিয়ে এই শাড়িগুলি কিন্তু দেখতেও বেশ ভাল লাগে। এই শাড়িতে যে তুলো ব্যবহার হয়, তাতে খুব বেশি স্টার্চ লাগে না। বেগমপুরি শাড়ির পাড়ের নকশা সরু এবং রঙিন সুতো দিয়ে হয়। এগুলির ওজন যথেষ্ট হালকা।সফট জামদানিও কিন্তু গরমে যেমন আরামদায়ক তেমনই দেখতে ভাল। তাই এই গরমে শাড়ি পরতে পিছুপা না হয়ে শাড়ি বেছে নিতে হবে স্মার্টলি।

মডেল- অনুক্তা ঘোষাল

শাড়ি- লেবেল সুকন্যা

চিত্র- খুশি দাস

সুকন্যা গুহ ( ফ্যাশান ডিজাইনার এবং লেবেল সুকন্যার কর্ণধার)

আরও পড়ুন...