Hello Testing Bangla Kobita

সম্পাদকীয়

২৭শে আষাঢ়, ১৪২৭ | 12th July, 2020

বর্ষা এসে গিয়েছে। মনে তবু আনন্দের লেশমাত্র নেই। গোটা পৃথিবীর উপর দুর্যোগের যে মেঘ জমা হয়েছে, তা কেটে ওঠার বদলে ঘন হয়ে উঠছে দিন দিন। আমাদের দেশ ক্রমশ সেই মেঘের গর্জনে আরো বেশি সন্ত্রস্ত হয়ে পড়ছে। কবে সব কিছুর থেকে বেরিয়ে আবার স্বাভাবিকভাবে জীবন কাটবে? জানি না কেউ। জানে না কোনো একটি দেশও। শুধু নির্বাসন মেনে নিতে হচ্ছে আমাদের প্রত্যেককে।

প্রণবেন্দু দাশগুপ্ত তাঁর প্রবন্ধ ‘কবিতা ও আমি’-তে লিখেছেন- ‘কবিতা তথা সমস্ত সাহিত্যেরই মূল উৎস হল জীবন। …সাহিত্য জীবনের উন্মীলন, জীবনের অনেক অন্তঃশীল যোগসূত্রের উজ্জ্বল উন্মোচন।…’ এই জীবন, এই প্রাণশক্তিই আমাদের ভরসা সমস্ত বাধার সামনে। তাই আরো একবার সাহিত্য সম্ভার নিয়ে আমরা উপস্থিত হলাম সবার কাছে। দেশ ও দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে বহু মানুষের হ্যালো টেস্টিং বাংলা কবিতা-কে কাছে টেনে নেওয়া আমাদের আরো বেশি করে এই ওয়েব ম্যাগাজিনকে সাজিয়ে তুলতে সাহায্য করেছে। যখন দেখি আরো অনেক অনলাইন সাহিত্য পত্রিকা আমাদের বিভাগগুলি দেখে উৎসাহিত হয়ে সেভাবেই চালু করছে একই রকমের বিভাগ, কিংবা কোনো পত্রিকা খোলনলচে বদলে হয়ে উঠতে চাইছে আমাদের এই পত্রিকার মতোই, তখন মনে হয় সত্যিই হয়তো ভালো কাজের একটা দৃষ্টান্ত রাখতে পেরেছি সবার সামনে। এই ভালোলাগাগুলোকে নিয়েই আরো অনেকটা দূর এগোতে চাই।

এই সংখ্যাটিও পড়ে দেখুন। সুস্থ আলোচনা, নির্মম সমালোচনা করুন। আমরা আরো পরিণত হব। আগামীর পৃথিবী সেরে উঠুক, এর বেশি আর কিই বা চাইতে পারি সবশেষে…